পদ্মা সেতু নিয়ে অস্বস্তিতে বিএনপি
স্বপ্ন নিউজ প্রতিনিধি
ডিসেম্বর ১০, ২০২০, ১০:১১ অপরাহ্ণ

সেতু দৃশ্যমানের দিন বিএনপি নেতারা রাজধানীতে দুটি কর্মসূচিতে বক্তব্য রেখেছেন। সংবাদ সম্মেলন হয়েছে দলের পক্ষ থেকে। কিন্তু কোনোটিতে আসেনি পদ্মা সেতু প্রসঙ্গ। এমনকি প্রশ্ন করলেও এ নিয়ে বলতে চাননি কেউ।
পদ্মা সেতুর শেষ স্প্যান বসার দিন দেশ জুড়ে যখন তুমুল আলোচনা, সেদিন রাজধানীতে তিনটি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রেখেছেন বিএনপির শীর্ষ নেতারা। কিন্তু কোথাও কেউ একটি বারের জন্যও এই সেতু নিয়ে কথা বলেননি।

এই সেতু নির্মাণের শুরু থেকে নানা অভিযোগ করে আসা দলটির নেতারা বিষয়টি নিয়ে চুপ কেন – এমন প্রশ্নে একজন নেতা বলেন, তিনি বিতর্কে আসতে চান না। অন্যদেরটা জানেন না।
বৃহস্পতিবার পদ্মা সেতুর শেষ স্প্যান বসানোর দিন রাজধানীতে বিএনপির কর্মসূচি ছিল তিনটি।

দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে একটি আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন ঢাকা দক্ষিণ বিএনপির সভাপতি হাবিব উন-নবী খান সোহেল।

বিকালে দলীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছেন গত দুই মাস দফতরের দায়িত্ব পালন করে আসা এমরান সালেহ প্রিন্স।

একই সময়ে একটি ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনটি কর্মসূচিতে সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন বিএনপি নেতারা।

পদ্মা সেতুর মতো আলোচিত ঘটনা কেন এড়িয়ে গেলেন- জানতে চাইলে সোহেল নিউজবাংলাকে বলেন, ‘আলোচনাহীন বিষয়বস্তু নিয়ে আমি কোনো আলোচনা করতে চাই না। এই অনুষ্ঠানে যা আলোচনা করার কথা ছিল, আমি তা নিয়ে কথা বলেছি।’

দিনভর তুমুল আলোচিত পদ্মা সেতু প্রসঙ্গ কেন এড়িয়ে গেলেন, জানতে চাইলে এমরান সালেহ প্রিন্স কিছু বলতে চাননি।

পদ্মা সেতু নিয়ে বিএনপির অবস্থান সব সময় ছিল সমালোচমুখর। বিশ্বব্যাংক দুর্নীতি চেষ্টার অভিযোগ তোলার পর বিএনপি সোচ্চার ছিল দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে। পরে তারা বলেছে, সরকার এই সেতু করতে পারবে না, করলেও সেটা জোড়াতালির সেতু হবে। এই সেতুতে না উঠতে নেতাকর্মীদের সাবধানও করে দেন দলীয় চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

২০১৮ সালের ২ জানুয়ারি ছাত্রদলের এক আলোচনায় বিএনপি নেত্রী বলেন, ‘পদ্মা সেতুর স্বপ্ন দেখাচ্ছে সরকার। কিন্তু পদ্মা সেতু আওয়ামী লীগের আমলে হবে না। এ সেতু জোড়াতালি দিয়ে বানানো হচ্ছে। এ সেতুতে কেউ উঠবেন না। অনেক রিস্ক আছে।’

এ নিয়ে সে সময় তুমুল সমালোচনা হলে সংবাদ সম্মেলনে আসেন মহাসচিব মির্জা ফখরুল। তিনিও বলেন পদ্মা সেতু টিকবে না। তার বক্তব্যটা ছিল এমন- ‘একটা ভ্রান্ত ও ভুল ডিজাইনের উপরে পদ্মা সেতু নির্মিত হলে সেটা যে টিকবে না, সেটা তো উনি (খালেদা জিয়া) ভুল বলেননি। বরং তিনি সাচ্চা দেশপ্রেমিকের কাজ করেছেন। তোমরা এখনও এলার্ট হও, চেঞ্জ দ্য ডিজাইন এবং সেটা সঠিকভাবে নির্মাণ হতে হবে।’

বিএনপি এই সেতু নিয়ে কথা বলা কমিয়ে দেয় কানাডার আদালতের রায়ের পর। ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে এই রায় হয়, যা জানা যায় এক মাস পর। বিচারক সেই রায়ে বিশ্বব্যাংকের দুর্নীতি চেষ্টার অভিযোগকে গালগপ্প এবং উড়ো কথা বলে উড়িয়ে দেন।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এই রায়ের পর বলেন, তাদের নিজস্ব কোনো বক্তব্য ছিল না। গণমাধ্যমে কিছু অভিযোগ এসেছিল, তারা প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মাত্র।

এরপর ২০১৮ সালের শুরুর দিকে পদ্মা সেতুতে না উঠতে খালেদা জিয়ার আহ্বানের পর থেকে দলটি একেবারেই সেতু নিয়ে কথা বলা ছেড়ে দেয়।

ফখরুল যা বললেন

ফখরুল কথা বলেন বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে ভার্চুয়াল আলোচনায়। তিনি বলেন, ‘৩৫ লাখের বেশি মানুষকে মিথ্যা মামলায় আসামি করা হয়েছে, এক লাখেরও বেশি মামলা। নয়শ’র মতো মানুষ গুম হয়ে গেছে, হত্যা হয়েছে হাজার হাজার।’

পদ্মা সেতু নিয়ে অস্বস্তিতে বিএনপি
মানবাধিকার বিষয়ে ভার্চুয়াল আলোচনায় বৃহস্পতিবার বক্তব্য রাখেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর
মানবাধিকার লংঘনের দায়ে সরকারকে এক দিন না এক দিন জনগণের কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে মন্তব্য করে বিএনপি নেতা বলেন, ‘আমি অনেকের বাসায় গিয়েছি। তাদের মা-বোন-ভাইদের এখনও যে আহজারি- এটা কখনোই মেনে নেয়ার মতো নয়।…তাদের অপরাধ তাদের সুনির্দিষ্ট রাজনৈতিক চিন্তা ছিল, সরকারের মতো থেকে ভিন্নমত পোষণ করত। এই কারণে তাদেরকে হারিয়ে যেতে হয়েছে, খুন হতে হয়েছে।’

সরকার নির্বাচন ব্যবস্থা ধ্বংস করে দিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন বিএনপি নেতা।

ভার্চুয়াল আলোচনায় ঢাকায় বিভিন্ন দেশ ও আন্তর্জাতিক সংস্থার কূটনীতিকরা অংশ নেন।

বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে ‘এবসেন্স অব ডেমোক্রেসি অ্যান্ড সিস্টেমেটিক হিউম্যান রাইটস ভায়োলেশন্স বাই স্টেট এপারেটাস’ শীর্ষক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

বিএনপির মানবাধিকার টিমের সম্পাদনায় ১১৬ পৃষ্ঠার এই বইয়ে ২০০৯ থেকে ২০২০ সালের মানবাধিকার লঙ্ঘনের নানা ঘটনা তুলে ধরা হয়েছে।

বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন লন্ডনে নির্বাসনে থাকা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

বিএনপির সংবাদ সম্মেলন

প্রিন্স সংবাদ সম্মেলন করেন পৌর নির্বাচনে ভোট কারচুপির অভিযোগ নিয়ে।

তার দাবি, বৃহস্পতিবার দেশের বিভিন্ন এলাকায় পৌরসভা ও উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে যে ভোট হয়েছে, তার কোথাও বিএনপির কর্মী সমর্থকদের ভোট দিতে দেয়া হয়নি।

পদ্মা সেতু নিয়ে অস্বস্তিতে বিএনপি
স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ভোটে কারচুপির অভিযোগ এনে বিএনপির পক্ষে এমরান সালেহ প্রিন্সের সংবাদ সম্মেলন
নির্বাচন কমিশনকে সরকারের আজ্ঞাবহ উল্লেখ করে বিএনপি নেতা বলেন, নির্বাচনী ব্যবস্থাকে সরকার ধ্বংস করে দিয়েছে। নির্বাচনের নামে তামাশা করা হয়েছে। সন্ত্রাসী দিয়ে জনগণের রায় ছিনতাই করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবারের সব ভোট বাতিল করে নতুন করে নির্বাচন দেয়ার দাবিও করা হয় সংবাদ সম্মেলনে।

সভা সমাবেশের জন্য অনুমতি চাইবেন না সোহেল

জাতীয় প্রেসক্লাবে হাবিব উন-নবী খান সোহেল বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুকের ৭১তম জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে।

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নুল আবদিন ফারুকের ৭১ তম জন্মবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে হাবিব উন নবী খান সোহেল
এ সময় তিনি রাজধানীতে সভা সমাবেশ করতে পুলিশের পূর্বানুমতির বিধানকে অগণতান্ত্রিক উল্লেখ করে বলেন, বিএনপি অনুমতি ছাড়াই সভা সমাবেশ করবে, সরকার যেন পারলে ঠেকায়।

আপনার মতামত লিখুন

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠপুত্র শেখ রাসেলের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়েন বড় বোন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।শুক্রবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদ আয়োজিত আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়েন তিনি।

ঢাকা অফিস

সম্পাদক : মোঃ ইয়াসিন টিপু

নাহার প্লাজা , ঢাকা-১২১৬

+৮৮ ০১৮১৩১৯৮৮৮২ , +৮৮ ০১৬১৩১৯৮৮৮২

shwapnonews@gmail.com

পরিচালনা সম্পাদক : মিহিরমিজি

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | সপ্ন নিউজ
Powered By U6HOST