নির্জন দ্বীপে নতুন জীবন!
স্বপ্ন নিউজ ডেস্ক
জানুয়ারি ৭, ২০২১, ৫:৩০ অপরাহ্ণ

যুগলে বেড়াতে গিয়ে আটকে পড়লেন দ্বীপে। কেননা, ততদিনে করোনা-আবহে লকডাউন ঘোষিত হয়েছে। কিন্তু ভেঙে পড়লেন না যুগল। তারা দিব্যি নতুন করে জীবন শুরু করে দিলেন সেখানে। গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেজ লিখেছিলেন ‘লাভ ইন দ্য টাইম অফ কলেরা’। বিশ্বখ্যাত সেই উপন্যাসের শুধুমাত্র শিরোনামটুকু গ্রহণ করে এবং ভূমিকায় সেই ঋণ স্বীকার করে বাংলা সাহিত্যের অন্যতম বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক সন্দীপন চট্টোপাধ্যায় লিখেছিলেন ‘কলেরার দিনগুলিতে প্রেম’ শীর্ষক এক উপন্যাস। না, এই দ্বীপনিবাসী যুগলের রোমাঞ্চকর ঘটনার সঙ্গে এই দুই উপন্যাসের কোনও যোগাযোগ নেই। যোগাযোগ শুধু ধরতাইতে। ‘কলেরা’র জায়গায় ‘করোনা’। করোনা-আবহে মুষড়ে না পড়ে জনবিচ্ছিন্ন প্রায়-বন্দী এই যুগল নির্জন দ্বীপে নতুন করে যেন রোমান্টিক সম্পর্কে ডুবে গেলেন। পেলেন অন্যরকম এক মুক্তির স্বাদ।

ঘটনাটা কী ঘটেছিল:
কোভিড-পূর্ব পৃথিবীতে অ্যাডভেঞ্চারে বেরিয়েছিলেন ব্রিটেনের লিডস এলাকার বাসিন্দা লিউক ও সারা। পৌঁছেছিলেন আয়ারল্যান্ডের একটি নতুন দ্বীপে, ওয়ে আইল্যান্ডে। সময়টা গত বছরের মার্চ। সেখানে পৌঁছানোর দু’দিন পরেই ব্রিটেনে লকডাউন শুরু হয়। ফলে সেই দ্বীপেই আটকে পড়েন তাঁরা। গত বছরের মার্চ থেকে নতুন বছরের জানুয়ারি পর্যন্ত এই যুগল ওই দ্বীপেই রয়ে গেলেন। দ্বীপটিতে বিদ্যুৎ নেই। নেই পানীয় জলের ব্যবস্থা। খাবারের দোকান তো অনেক দূরের বিষয়। লোকজনের বাড়িঘরও সেখানে হাতেগোনা। তা হলে কী করে ওই যুগল বেঁচে থাকতে পারছেন এই দ্বীপে?

আপনার মতামত লিখুন

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠপুত্র শেখ রাসেলের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়েন বড় বোন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।শুক্রবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদ আয়োজিত আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়েন তিনি।

ঢাকা অফিস

সম্পাদক : মোঃ ইয়াসিন টিপু

নাহার প্লাজা , ঢাকা-১২১৬

+৮৮ ০১৮১৩১৯৮৮৮২ , +৮৮ ০১৬১৩১৯৮৮৮২

shwapnonews@gmail.com

পরিচালনা সম্পাদক : মিহিরমিজি

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | সপ্ন নিউজ
Powered By U6HOST