নারীদের সঙ্গে ‘অশ্লীল ছবি’ তুলে মুখ বন্ধ করানো হতো
স্বপ্ন নিউজ ডেস্ক
জানুয়ারি ৩১, ২০২১, ৬:৪৭ অপরাহ্ণ

মুক্তিপন আদায় শেষে চক্রের নারী সদস্যদের সঙ্গে ‘অশ্লীল ছবি’ তুলে ছেড়ে দেওয়া হতো ভুক্তভোগীদের। লোকলজ্জার ভয়ে যেনো পুলিশের কাছে অভিযোগ করতে না পারে, সেই জন্যই চক্রটি এমন অভিনব কৌশল প্রয়োগ করতো। এই অপহরণ চক্রটির সদস্যরা দীর্ঘ দিন ধরে সক্রিয়ভাবে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছিলো। তারা প্রথমে ভুক্তভোগীকে অপহরণ করে পরিবারের কাছ থেকে মোটা অংকের মুক্তিপণ দাবি করত। এরপর ভুক্তভোগীর পরিবার থেকে ২-৩ লাখ টাকা পেলেই তারা ভুক্তভোগীকে ছেড়ে দিত।
পুলিশ জানিয়েছে, মুক্তিপন হাতে পাওয়ার পর ভুক্তভোগীকে ছেড়ে দেওয়ার আগে চক্রটি তাদের নারী সদস্যদের দিয়ে অশ্লীল ছবি তুলে রাখত। যেন সামাজিক লোকলজ্জার ভয়ে পুলিশে অভিযোগ দিতে না পারে ভুক্তভোগীরা। সুনির্দিষ্ট তথ্য ভিত্তিতে এমন চক্রের ৬ জন সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে ডিএমপির গোয়েন্দার (ডিবি) উত্তর বিভাগের একটি দল। রোববার (৩১ জানুয়ারি) দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) এ কে এম হাফিজ আক্তার এসব কথা বলেন।

আরও পড়ুন…৩ জায়গায় তিন তরুণীর মরদেহ উদ্ধার

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- সাদেকুল ইসলাম, ইফরান, মোহাম্মদ আলী রিফাত, কুতুব উদ্দিন, মাছুম রানা ও গোলাম রাব্বি।
পুলিশ কর্মকর্তা হাফিজ আক্তার বলেন, গত ২৯ জানুয়ারি উত্তরা হাউজ বিল্ডিং ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের পূর্বপাশে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিল। এ সময় ৪/৫ জন অজ্ঞাতনামা অপহরণকারী চক্রের সদস্য মাইক্রোবাসে করে তার কাছ আসে। পরে ভুক্তভোগীকে সুকৌশলে গাড়িতে তুলে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে অপহরণকারীরা ভুক্তভোগীর স্ত্রী ও বড় ভাইয়ের কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে ৩ লাখ ৩৪ হাজার টাকা মুক্তিপণ আদায় করে। মুক্তিপণ পাওয়ার পর চক্রটির সদস্যরা উত্তরার ল্যাব এইড হাসপাতালের সামনে ফেলে যায় ভুক্তভোগীকে। এ ঘটনায় উত্তরা পূর্ব থানায় একটি মামলা রজু হয়। এই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ডিবি উত্তর বিভাগের একটি দল এই চক্রের সদস্যদের গ্রেপ্তারের করেছে। এর আগেও এই চক্রের ৩ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আরও পড়ুন…ফেসবুক চালাতে না দেয়ায় বাবার সঙ্গে অভিমান, ফাঁস দিলো কিশোরী

তিনি বলেন, চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে সক্রিয়ভাবে অপহরণ করে আসছিল। নানা কৌশল অবলম্বন করায় ভুক্তভোগীরা ভয়ে পুলিশের কাছে আসত না। চক্রটি নারী সদস্যদের দ্বারা অপহৃত ব্যক্তিদের এমন কিছু অশ্লীল ছবি তুলে রাখে যার ফলে ভুক্তভোগীরা পরবর্তীতে সামাজিক লজ্জার ভয়ে আর পুলিশের কাছে অভিযোগ দিতে পারে না। এছাড়া তারা ভুক্তভোগীদের অস্ত্র দিয়ে ভয়ভীতি দেখাত তারা যেন পুলিশের কাছে পরবর্তীতে অভিযোগ দিতে না যায়। আর যদি পুলিশের কাছে কোনও অভিযোগ দেয়, তাহলে অশ্লীল ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিবে বলেও হুমকি দিতো।
তিনি আরও বলেন, ভুক্তভোগীদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই, কেউ যদি এই যদি এই চক্রটির মাধ্যমে অপহৃত হয়ে থাকেন, তাহলে গোপনে আমাদের কাছে আসেন, আমরা সক্রিয়ভাবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করব। তবে আমরা যখন এই চক্রের সদস্যদের গ্রেপ্তার শুরু করি তখন ভুক্তভোগীরা একের পর এক আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছেন। এখন পর্যন্ত মোট ৪ জন ভুক্তভোগী আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন।

চক্রটি রাজধানীর কোন এলাকায় কার্যক্রম চালাচ্ছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, উত্তরা ও ঢাকা দক্ষিণের কিছু এলাকায় তাদের কার্যক্রমের ছাপ আমরা পেয়েছি। আসলে ঢাকার যেই জায়গায় সুবিধা পায় সেই জায়গায় তারা অপহরণ করে । এক্ষেত্রে তারা খুবই সাধারণ মানুষদের অপহরণ করত। যাতে করে নিউজ না হয় বা কোনও আলোচনা নয়। প্রথমে তারা মোটা অংকের মুক্তিপণ দাবি করলেও ২ থেকে ৩ লাখ টাকা পেলে ভুক্তভোগীদের ছেড়ে দিত।

আপনার মতামত লিখুন

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠপুত্র শেখ রাসেলের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়েন বড় বোন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।শুক্রবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদ আয়োজিত আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়েন তিনি।

ঢাকা অফিস

সম্পাদক : মোঃ ইয়াসিন টিপু

নাহার প্লাজা , ঢাকা-১২১৬

+৮৮ ০১৮১৩১৯৮৮৮২ , +৮৮ ০১৬১৩১৯৮৮৮২

shwapnonews@gmail.com

পরিচালনা সম্পাদক : মিহিরমিজি

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | সপ্ন নিউজ
Powered By U6HOST